বিশ্ব শিশু দিবস; তারিখ, ইতিহাস, শুভেচ্ছা বার্তা, ছবি ও উক্তি

শিশুদের অধিকার ও সুষ্ঠুভাবে বেড়ে ওঠার জন্য যে দিনটি ঘোষণা করা হয়েছে সেটি কি শিশু দিবস বলে। একজন শিশুর জন্ম থেকে 18 বছর পর্যন্ত শিশু হিসেবে ধরে নেয়া হয়। একটি মানব শিশুর জন্ম থেকে 18 বছর পূর্ণ পর্যন্ত সময়টাতেই রাষ্ট্র ও সমাজ থেকে কিছু অধিকার ভোগ করে। অনেক ক্ষেত্রে সকল শিশু সমান অধিকার পায় না। তাই বিশ্বের সকলকে শিশু অধিকার সম্পর্কে সচেতন করার জন্য শিশু দিবস পালন করা হয়। আজকে এই নিবন্ধে আমরা শিশু দিবসের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।

শিশু দিবস কবে?

শিশুদের নিয়ে যে দিন পালন করা হয় তাকে শিশু দিবস বলে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভিন্ন ভিন্ন তারিখে শিশু দিবস পালন করে। কিন্তু আন্তর্জাতিক শিশু দিবস হল পহেলা জুন। বিশ্ব শিশু দিবস কবে উদযাপন করা হয়। এছাড়া বাংলাদেশ 17 ই মার্চ শিশু দিবস পালন করা হয়। এই দিনটির বিশেষত্ব হল 17 মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে 17 ই মার্চ বাংলাদেশের শিশু দিবস উদযাপিত হয়।

শিশু দিবসের ইতিহাস

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের বিভীষিকাময় ও বেদনাদায়ক স্মৃতি এ দ্বীপটির জন্ম দেয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে এশিয়া আফ্রিকা ও ইউরোপের শত শত ফুলের মতো নিষ্পাপ শিশু মারা। অনেক বড় শহর ধ্বংস স্তুপে পরিণত। হাজার হাজার শিশু অসহায় ও বৃত্তি মাতৃহীন হয়ে পড়ে। পঙ্গু ও বিকলাঙ্গ হয়ে যায় অনেকেই। জাতিসংঘের কল্যাণ তহবিল ইউনিসেফ এই অসহায় শিশুদের কল্যাণ ও নিরাপত্তা বিধানে এগিয়ে আসে এবং বিশ্ববাসীর মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে একটি দিবস পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এদিন সামগ্রিক আলোচনার মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শিশুদের সমস্যা গুলি বিবরণ তুলে ধরেন এবং সমাধানের পথ খুঁজে বের করেন। তাই জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ ১৯৫৪  সালে বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

বিশ্ব শিশু দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা

আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। আজকে যারা শিশু আগামী দিনের তারাই হবে দেশ ও জাতির কর্ণধার। তাই শিশু দিবসে এই অঙ্গীকার হোক প্রত্যেকটি শিশু তার অধিকার নিয়ে বেড়ে উঠুক। এবং একদিন সুনাগরিক হয়ে দেশের সেবা করতে পারে। তাই বিশ্ব শিশু দিবস অনেকেই শিশুদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন করার জন্য শিশু দিবসের বিভিন্ন শুভেচ্ছাবার্তা একে অন্যকে জানিয়ে থাকে। এই নিবন্ধে আমরা বিশ্ব শিশু দিবস উপলক্ষে কিছু শুভেচ্ছাবার্তা সংযুক্ত করেছে।

বিশ্ব শিশু দিবসের ছবি

আজকের শিশু আগামী দিনের দেশ ও জাতির ভবিষ্যৎ কর্ণধার । একটি নবজাতক শিশুর মধ্যে আজ যে প্রাণের সঞ্চার হলো তা একদিন ফুল ফলে প্রস্ফুটিত হবে। বড় হয়ে একদিন সে জাতির আশা-আকাঙ্ক্ষা ভবিষ্যতের স্বপ্ন সফল। কারণ শিশু একদিন বড় হয়ে দেশ ও সমাজের দায়িত্ব গ্রহণ করবে। তারা হবে দেশের । এজন্য চাই শিশুর সযত্ন প্রতিফলন বিকাশ সাধনের সুষ্ঠু পরিবেশ শিশুদেরকে আদর-সোহাগ যত্ন শিক্ষা দিয়ে বড় করে তোলার জন্য অনুকূল পরিবেশ,  উপযুক্ত শিক্ষা। তাই শিশু অধিকার সংরক্ষণের জন্য শিশু দিবস আন্তর্জাতিকভাবে পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এই শিশু দিবসে সকলকে শিশুর অধিকার সম্পর্কে সচেতন করার জন্য আমরা ছবি দিয়ে শিশু অধিকার সম্পর্কে সচেতন করতে পারি। এরকমই কিছু ছবি নিবন্ধের এই অংশে আমি সংযুক্ত করেছি।

শিশু দিবসের উক্তি

বিশ্বের মোট জনসংখ্যার প্রায় শতকরা 25 ভাগ শিশু। এটা পরম সত্য যে শিশুরাই জাতির ভবিষ্যৎ এবং আগামী দিনের রাষ্ট্রনায়ক। তারাই একদিন সুনাগরিক হয়ে দেশের নেতৃত্ব দেবে। তাই তারা অবহেলিত থাকলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম মুখ থুবরে পড়বে। এজন্য পৃথিবীর বিখ্যাত মনীষীরা শিশু দিবস নিয়ে বিখ্যাত বিখ্যাত কিছু উক্তি দিয়ে গেছেন। এরকমই কিছু উক্তি আমি নিচের অংশের সংযুক্ত করছি।

“যদি আপনি চান আপনার সন্তান বুদ্ধিমান হোক, তাহলে তাকে রূপকথার গল্প পড়ান | আর যদি আপনার সন্তানকে আপনি আরো বুদ্ধিমান করতে চান, তাহলে আরো বেশি করে রূপকথার গল্প পড়ান” – Happy Children’s Day

“একটা নিয়ম বানিয়ে ফেলুন, আপনি আপনার সন্তানকে যা বই পড়তে দেবেন তা আপনি নিজে সবার আগে পড়বেন” – Happy Children’s Day

“শিশুরা হলো ভবিষ্যতের সবচেয়ে মূল্যবান উপাদান, তাই তাদের সঠিকভাবে গড়ে তোলা আমাদের সবার কর্তব্য” – Happy Children’s Day

“শিশুরা হচ্ছে সেই হাত যাকে ধরে আমরা সবাই স্বর্গে যেতে পারি” – Happy Children’s Day

“নিজের সন্তানকে প্রথম ৫ বছর খুব যত্ন সহকরে মানুষ করুন, বাকি ৫ বছর তাকে শাসনের মধ্যে রাখুন আর যখন তার ১৬ বছর পূর্ণ হবে, তখন তার সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করো | আপনার বেড়ে ওঠা সন্তান আপনার পরম বন্ধু হয়ে উঠতে পারে” – Happy Children’s Day

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *